প্রতি ১৭ ঘন্টায় একজন নতুন বিলিয়নিয়ার : ফোর্বস

Neeti Chakma

করোনা মহামারী পুরো পৃথিবীকে একটি সংকটময় পরিস্থিতির দিকে ঠেলে দিয়েছে। আইএমএফ (International Monetary Fund) বলছে, গত শতাব্দীর ১৯৩০-এর মহামন্দার পর বিশ্ব অর্থনীতি সবচেয়ে বড় মন্দা অবস্থার সম্মুখীন হয়েছে। কোভিড-১৯ মহামারির দোদুল্যমান অর্থনৈতিক পরিস্থিতির মধ্যও নতুন নতুন ধনকুবেরের নাম যুক্ত হচ্ছে ফোর্বসের বাৎসরিক  বিলিয়নিয়ারের তালিকায়। করোনাকালে বিশ্ব অর্থনীতি ভঙ্গুর হলেও ২০২০ সাল ছিল বিশ্ব ধনকুবেরদের জন্য উল্লেখযোগ্য একটি বছর।

আমেরিকান বিজনেস ম্যাগাজিন ফোর্বস প্রতি বছর বিশ্বের বিলিয়নিয়ারদের তালিকা প্রকাশ করে। ১৯৮৭ সাল থেকে চলমান এ তালিকার ধারাবাহিকতায়  এ বছর ৩৫ তম বার্ষিক বিলিয়নিয়ারের তালিকা প্রকাশ করেছে ফোর্বস। তবে এ বছরের তালিকাটি বিগত তলিকাগুলোর চেয়ে বেশি মনযোগ আকর্ষণ করে। ফোর্বসের তথ্য অনুযায়ী, বিশ্বে করোনা মহামারিকালে প্রতি ১৭ ঘন্টায় একজন নতুন ব্যক্তি বিলিয়নিয়ার হয়েছেন। গত বছরের তালিকায় যুক্ত হয়েছেন নতুন আরও ৬৬০ জন (বর্তমানে মোট ২৭৫৫ জন, ২০২০ সালে ২০৯৫ জন), যাদের মধ্যে ৪৯৩ জনই একেবারেই নতুন। অর্থাৎ এবারেই তারা প্রথমবারের মতো বিলিয়নিয়ার হয়েছেন। এর আগে এক বছরে একসাথে এতজন এই শত কোটিপতির তালিকায় ঢুকতে পারেন নি। ফোর্বসের তথ্যানুসারে, পৃথিবীতে বিলিয়নিয়ারের সংখ্যা বৃদ্ধি পেয়ে ২ হাজার ৭৫৫ জনে উন্নীত হয়েছে। আর তাঁদের সম্মিলিত সম্পদের নিট মূল্য দাঁড়িয়েছে ১৩ দশমিক ১ ট্রিলিয়ন বা ১৩ লাখ ১০ হাজার কোটি মার্কিন ডলার।

দেশভিত্তিক বিলিয়নিয়ারদের সংখ্যা :

১. আমেরিকা (৭২৪ জন)

২. চীন (৬২৬ জন)

৩. ভারতে (১৩০ জন)

৪. জার্মানি (১৩৬ জন)

৫. রাশিয়া (১১৭ জন)

৬. হংকং (৭১ জন)

৭. ব্রাজিল (৬৫ জন)

৮. কানাডা (৬৪ জন)

৯. যুক্তরাজ্য (৫৬ জন)

১০. ইতালি (৫১ জন)

শীর্ষ দশ ধনকুবের:

১. টানা চতুর্থ বারের মতো এবারও শীর্ষস্থান দখন করে আছেন আমাজনের মালিক মার্কিন ধনকুবের জেফ বেজোস। তাঁর মোট সম্পদের পরিমাণ ১৭৭ বিলিয়ন মার্কিন ডলার।

২. টেসলা ও স্পেসএক্সের মালিক মার্কিন ধনকুবের ইলন মাস্ক মোট ১৫১ বিলিয়ন ডলার পরিমাণ সম্পদ নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে আছেন।

৩. ইলন মাস্কের চেয়ে মাত্র এক বিলিয়ন ডলার কম অর্থাৎ ১৫০ বিলিয়ন ডলার পরিমাণ সম্পদ নিয়ে তালিকায় তৃতীয় অবস্থানে আছেন ফ্রান্সের বিলাস পণ্যর ব্যবসায়ী বার্নার্ড আর্নল্ট।

৪. মাইক্রোসফটের সহ প্রতিষ্ঠাতা ও সাবেক সিইও বিল গেইটস আছেন চতুর্থ অবস্থানে। তাঁর মোট সম্পদের পরিমাণ ১২৪ বিলিয়ন ডলার।

৫. ফেইসবুকের সহ প্রতিষ্ঠাতা মার্ক জাকারবার্গ ৯৭ বিলিয়ন  ডলার নিয়ে আছেন পঞ্চম অবস্থানে।

৬. বার্কশায়ার হাথওয়ের প্রধান ওয়ারেন বাফেট আছেন ষষ্ঠ অবস্থানে। তাঁর মোট সম্পদের পরিমাণ ৯৬ বিলিয়ন ডলার।

৭.  সপ্তম অবস্থানে আছেন ওরাকলের সহ প্রতিষ্ঠাতা ল্যারি এলিসন। তাঁর মোট সম্পদের পরিমাণ ৯৩ বিলিয়ন ডলার।

৮. গুগলের সহ প্রতিষ্ঠাতা ল্যারি পেইজ আছেন অষ্টম অবস্থানে ৯১.৫ বিলিয়ন ডলার পরিমাণ সম্পদ নিয়ে।

৯. ৮৯.৫ বিলিয়ন ডলার পরিমাণ সম্পদ নিয়ে নবম অবস্থানে আছেন গুগলের আরেক সহ প্রতিষ্ঠাতা সের্গ্রেই ব্রিন।

১০. দশম অবস্থানে আছেন এশিয়ার শীর্ষ ধনী ব্যক্তি ভারতের মুকেশ আম্বানি। তাঁর মোট সম্পদের পরিমাণ ৮৪.৫ বিলিয়ন ডলার। 

 174 total views,  2 views today

Leave a Reply

Your email address will not be published.